২৫শে আগস্ট, ২০১৯ ইং, ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

সাবরাং ইউপি নিবার্চনে এক প্রিসাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ

বৃহস্পতিবার, ২৪ মার্চ ২০১৬

iuppটেকনাফবার্তা২৪ডটকম : টেকনাফ সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদ নিবার্চনে এক প্রিসাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ করেছে এক প্রার্থী। ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত ৪নং সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী ফরিদ আহমদ , প্রতীক মোরগ অভিযোগ করে বলেন কচুবনিয়া ৫ নং বুথে টিউবওয়েল প্রার্থীর ছেলে জাবের মহিলা ভোটারদের হাত থেকে ব্যালট পেপার ও সীল কেড়ে নিয়ে ইচ্ছামত টিউবওয়েল মার্কায় সীল মারতে থাকে। এ অবস্থায় আমি প্রার্থী নিজেই এবং আমার এজেন্টরা তাতে বাধা দেয় এবং দায়িত্বরত প্রিসাইডিং অফিসার ডাঃ শুভনদাশকে বারবার অবহিত করা সত্বেও ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এমনকি স্বয়ং দায়িত্বরত প্রিসাইডিং অফিসার ডাঃ শুভনদাশ জন সম্মুখে উচ্চ আওয়াজে বলেন- স্থানীয় নির্বাচনে এরকম হওয়াটা একদম স্বাভাবিক। এ অবস্থায় আমার করার কিছুই নেই বলার পর থেকে ঐ টিউবওয়েল প্রার্থীর লোকজন আরো বেপরোয়া হয়ে বিভিন্ন বুথে গিয়ে শক্তি প্রয়োগ করে ইচ্ছামত সীল মারে।

আমি মেম্বার প্রার্থী ফরিদ আহমদ শুরু থেকেই প্রিসাইডিং অফিসারের কার্যপরিকল্পনায় সন্দিহান ছিলাম। ভোট গ্রহণ শেষে ব্যালট পেপার বাছাই করে ভাজ করার সময় দেখা যায় মোরগ প্রতীকে অসংখ্য ভোট পড়েছে। উপস্থিত সবাই মোরগের বিজয় হয়ে গেছে মর্মে মৌখিক ঘোষণা ও মিষ্টি মুখ করার আহবান করেন। খুশী করে সবারজন্য দোকানে মিষ্টির জন্য পাটানো হয়। মিষ্টি নিয়ে আসার আগেই এ অবস্থা দেখে প্রিসাইডিং অফিসার ডাঃ শুভনদাশ নিজের এজেন্ডা বাস্তবায়নে সু কৌশলে পরিকল্পীতভাবে কন্ট্রাকমত আমাকে মোরগ প্রতীকে ভোট দেখায় ৮৬৭ এবং টিউবওয়েল প্রতীকে ভোট দেখায় ৮৭৪।  ভোটের পার্থক্য দেখায় ৭ টি। আবার আধাঘন্টা চিন্তা করে বাতিলকৃত ভোট থেকে ১৫ টি যোগ করে টিউবওয়েল প্রতীকে ভোট দেখায় ৮৮৯টি। তখন ব্যবধান হয় ২২ ভোট। বিষয়টি আমি দেখে প্রিসাইডিং অফিসার ডাঃ শুভনদাশকে বার বার অনুরোধ করে বলেছি ভোটের বান্ডিলের সাথে গণণার গরমিল দেখা যাচ্ছে। আমার বান্ডিলে ভোট আরো বেশী হবে এবং টিউবওয়েলে অনেক কম হবে এভাবে চ্যালেঞ্জ করা সত্বেও তিনি পাত্তা না দিয়ে দ্রুত চলে আসার সময় আমাকে বলেন আপনি যে কোন অভিযোগের জন্য রিটার্নিং অফিসারের সাথে যোগাযোগ করুন এবং আপনি রেজাল্ট সিটে স্বাক্ষর করুন, আমি অস্পষ্ট সিটে স্বাক্ষর করতে অপারগতা প্রকাশ করলে আমাকে দেড় ঘন্টা পর্যন্ত অবরোদ্ধ করে রাখে এর পরও আমি ও তালা প্রতীকের কবির আহমদ মেম্বারসহ কোন প্রার্থী বা এজেন্ট রেজাল্ট সিটে স্বাক্ষর করেনি।

সবার দাবী প্রিসাইডিং অফিসার ডাঃ শুভনদাশ টিউবওয়েল প্রার্থী জাফরের কাছ থেকে মোটা টাকার লেনদেন করে পরিকল্পিতভাবে রেজাল্ট পরিবর্তন করেছে। এ অবস্থায় আমি টেকনাফ নির্বাচন অফিসার ও টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে আবেদন করছি যে ৪ নং সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৩নং ওয়ার্ডেও মেম্বার প্রার্থীদের ভোট পুন গণণা এবং বিজয় ঘোষিত প্রার্থীর শপথ পাঠ বন্ধ রেখে অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

নিবেদক: ফরিদ আহমদ বিএসএস, প্রতীক মোরগ, ৩নং ওয়ার্ড, সাবরাং ইউনিয়ন ,টেকনাফ। –

টেকনাফ বার্তা ২৪ এ প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য




Leave a Reply

Your email address will not be published.