২১শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ৮ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ই শাবান, ১৪৪০ হিজরী

সেবা করে পরজীবনে পাড়ী দিতে চান টেকনাফ পৌর মেয়র

Monday,06 August 2018

teknafbarta24.com

বিশেষ প্রতিবেদক : টেকনাফ পৌরসভার মেয়র হাজী মোঃ ইসলাম বলেছেন, আমি মেয়র নয়, আপনারা সবাই মেয়র,বি গ্রেডে পৌরসভায় এ গ্রেডে উন্নতি করতে হবে।জীবনের পড়ন্ত বেলায় এসে পৌরসভার উন্নয়নের মাধ্যমে আমি আপনাদের সেবা করে পরজীবনে পাড়ি দিতে চাই। এ উদ্দেশ্যে নিয়েই আমি এ পৌর চেয়ারে বসেছি। আপনাদের সহযোগিতা ব্যতীত পৌরসভার উন্নয়ন আশা করা যায়না। আইন সবার জন্য সমান,সকলকে আইন মানতে হবে। বাংলাদেশে ৩৬০টি পৌরসভার মধ্যে টেকনাফ পৌরসভা হচ্ছে, দেশের সর্বদক্ষিণ সীমান্ত পৌরসভার গুরুত্ব অপরিসীম। তাই টেকনাফ একটি পর্যটন এলাকা এবং টেকনাফ পৌরসভাকে দেশের একটি মডেল পৌরসভা রূপান্তর করতে আমার স্বপ্ন রয়েছে। তাই এ স্বপ্ন বাস্তবায়নে পৌরবাসীকে উন্নয়নে এগিয়ে আসতে হবে।

(০৬ই আগষ্ট) বিকেল ৪টায় টেকনাফ পৌরসভার মিলনায়তনে ২০১৮-২০১৯অর্থ বছরে ১৯কোটি ৭৬ লাখ ২০ হাজার ১’শ টাকার বাজেট ঘোষনা কালে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

প্রস্তাবিত বাজেটে রাজস্ব খাতে ৫ কোটি ১৬ লাখ ২০ হাজার ১শত ৭৭ টাকা, উন্নয়ন খাতে ১৪কোটি ৬০ লক্ষ টাকা এবং সার্বিক বাজেট উদ্ধৃত্ত ১ কোটি ৫ লক্ষ ৫৬ হাজার ৪শত ৫৯ টাকা ধরা হয়েছে। এতে হাট বাজার ইজারা ১ কোটি টাকা, বাস স্ট্যান্ড ইজারা ২০লক্ষ, ফেরি ঘাট ইজারা ১৬ লক্ষ টাকা, দরপত্র সিডিউল বিক্রি ৭ লক্ষ ৫০ হাজার, গৃত ও ভূমি কর ৪০লক্ষ, স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তর কর ৫০ লক্ষ, পেশা, ব্যবসা ও কলিং বাবত ১৫ লক্ষ, বোট লাইসেন্স ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা এবং বাজেট ব্যয় খাতে রাস্তা নির্মাণে ৫০ লক্ষ, রাস্তা মেরামত ও সংস্কারে ১৫ লক্ষ, হাট বাজার উন্নয়নে ১০ লক্ষ টাকা ধরা হয়েছে।

বাজেটের বিভিন্ন বিষয়ের উপর স্থানীয় সাংবাদিকেরা প্রশ্ন করলে পৌর মেয়র হাজ্বী মোঃ ইসলাম উত্তর দেন।

এসময় আয় ও ব্যায়ের উপর বাজেট পাঠ করেন টেকনাফ পৌরসভার সচিব মুহাম্মদ মহিউদ্দিন ফয়েজী ও হিসাব রক্ষক মোহাম্মদ ছৈয়দ হোসেন।

বাজেট অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর প্যানেল মেয়র আব্দুল্লাহ মনির,প্যানেল মেয়র কহিনুর আক্তার, টেকনাফ মডেল থানার ওসি (অপারেশন)  রাজু আহমেদসহ অন্যান্য গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ ও স্থানীয় সংবাদকর্মীবৃন্দ।

টেকনাফ বার্তা ২৪ এ প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য