২৫শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ১১ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯শে শাবান, ১৪৪০ হিজরী

মেরিন ড্রাইভ থেকে ৮ লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার

Sunday,07 October 2018

teknafbarta24.com

বিশেষ সংবাদদাতা : কক্সবাজারের টেকনাফের নোয়াখালিয়া পাড়া মেরিন ড্রাইভ সড়কের পশ্চিমের সৈকত থেকে পুলিশ-বিজিবির পৃথক অভিযানে একই স্থান হতে ৮লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার হয়েছে। টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রনজিত বডুয়া বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৭ অক্টোবর ভোরে অভিযান চালিয়ে ৬ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

টেকনাফ বিজিবি অধিনায়ক আসাদুজ্জামন খান বলেন,’রাত ৯.৩০ মিনিটের দিকে তথ্য আসে মেরিন ড্রাইভ হয়ে প্রচুর পরিমাণ ইয়াবা আসবে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে সাবরাং হতে শাপলাপুর পর্যন্ত ৪ টি টহল দল দায়িত্ব পালন করে ফলে তারা রাতে মাল উঠাতে পরেনি। ভোর রাতে নোয়াখালিয়া পাড়ায় সাগরে মাল ফেলে নৌকা পালিয়ে গেলে সকালে আমরা ২লাখ ১০ হাজার পিচ ইয়াবা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়’।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে জানা যায়, রাত ৮টা থেকে সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের রাজারছড়া গ্রামের ৪ জন লোক মোটর সাইকেল নিয়ে মাল বহনের জন্য একটি নোয়া গাড়ীসহ সারারাত মেরিন ড্রাইভে অবস্থান করছিলেন। প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের কারনে তারা সফল হতে পারেনি। ইয়াবা বহনে ব্যবহৃত নৌকার মালিক বড় ডেইল এলাকার এক সাবেক মেম্বারের ছেলে বলে জানা যায়।

তবে এসব মালের ইয়াবার মূল মালিক লম্বরী এলাকার ২জন, নাজির পাড়ার ১ জন ও রাজারছড়া এলাকার ৪ জন এমন তথ্য এসেছে প্রশাসনের কাছে।

এদিকে টেকনাফ দক্ষিণ লেঙ্গুর বিল এলাকার এক গডফাদারের নেতৃত্বে ১৮ সদস্য বিশিষ্ট ১ টি সিন্ডিকেট একটি বড় বিদেশী ট্রলার ক্রয় করেছে, মিয়ানমার থেকে ইয়াবা সাগর পথে এনে সেন্টমার্টিনের অদূরে সিন্ডিকেটকে বুঝিয়ে দেন। সাবরাং থেকে শাপলাপুর পর্যন্ত ঘাটে থাকা চিহ্নিত নৌকা নিয়ে মাল খালাস করে গ্রামের ভিতরে নিরাপদ স্থানে পৌছে যায়।

জানা যায়, মেরিন ড্রাইভ ভিত্তিক ইয়াবা সিন্ডেকেট বর্তমানে খুব বেশী সক্রিয় রয়েছে। মেরিন ড্রাইভ দিয়ে মাল উঠা-নামা ও নিরাপদ হওয়ায় প্রতিদিন সৃস্টি হচ্ছে নতুন ইয়াবা ব্যবসায়ী। মহেশখালিয়া পাড়া ঘাট, লম্বরী ঘাট, রাজারছড়া, নোয়াখালিয়াপাড়া, শাপলাপুর ঘাট দিয়ে প্রতিদিন লাখ লাখ পিস ইয়াবা উঠছে ।

টেকনাফ বার্তা ২৪ এ প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য